,

প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্যে রাখছেন শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী

কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষাকে আরও আধুনিককায়ন করা হবে- শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী

নিজস্ব প্রতিনিধি, রাজবাড়ী ♦
শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী বলেছেন, মাদরাসা শিক্ষা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সৃষ্টি করেছিলেন। কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষাকে আরও আধুনিকায়ন করা হবে। মাদরাসা শিক্ষার মধ্যে কোন ধরনের রাজনীতি করা যাবেনা। তিনি আরও বলেন, সরকার প্রতি উপজেলায় একটি করে টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ প্রতিষ্ঠা করবে। মাদরাসার মধ্যে কারিগরি শিক্ষা অন্তভূক্ত করার চেষ্টা করা হবে। মাদরাসা শিক্ষা অর্জনের পাশাপাশি কারিগরি শিক্ষায় দক্ষ হলে কর্মসংস্থান সহজ হবে, দেশে বেকারত্বের হার কমবে।
শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) রাত সাড়ে ৭টায় রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার ছোটভাকলা ইউনিয়নে বাইতুল ইজ্জত দারুল উলুম মাদরাসা আয়োজিত ওয়াজ ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।
শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী বলেন, পিতা-মাতা কে সম্মানের সাথে ভালোবাসতে হবে। মাকে শ্রদ্ধা করতে হবে। মায়ের গর্ভেই আমাদের জন্ম। শিক্ষা মন্ত্রাণালয়ের দায়িত্ব দেওয়ায় আমি খুব খুশি। গোয়ালন্দে যে টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ প্রতিষ্ঠা হবে তার নামকরণ করা হবে রাজবাড়ী জেলার কৃতি সন্তান ওয়াজেদ চৌধুরীর নামে।
প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য কয়ে জন শিক্ষক প্রশ্নপত্র হাতে পাবার পর মোবাইল ফোনে তা ফাঁস করছে। এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেযা হবে। এমসিকিউ বন্ধ করার সুপারিশ করা হয়েছে। বড় প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। এতে প্রশ্ন ফাঁস রোধ করা যাবে। সরকারের নেয়া সিদ্ধান্তগুলো পর্যায়ক্রমে সম্পন্ন করা হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য দোয়া করতে হবে। তিনি একের পর এক মানুষের সেবায় উন্নয়নমূলক কাজ করে চলেছেন।
গোয়ালন্দ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদ চৌধুরীর পরিচালনায় ও ছোটভাকলা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. আমজাদ হোসেনের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদ সদস্য মো. নুরুজ্জামান মিয়া, জেলা পরিষদ সদস্য মো. হাসান ইমাম চৌধুরী ও জনতা ব্যাংক লিমিটেডের সাবেক জি.এম.বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. জয়েন উদ্দিন আহমেদ (বাবলু)।
এ সময় অনান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন গোয়ালন্দ উপজেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটির সভাপতি মেহেদী হাসান রুবেল, সাধারণ সম্পাদক আবু বক্কর সিদ্দিক খোকন প্রমুখ।
ওয়াজ ও দোয়া মাহফিলের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন বাইতুল ইজ্জত দারুল উলুম মাদরাসার মুতাওয়ালী আলহাজ্ব মো. মনসুর।

Print Friendly

     এই ক্যাটাগরীর আরো খবর