,

৩ হাজার কোটি ডলারে স্ন্যাপ কিনতে চেয়েছিল গুগল?

তথ্য প্রযুক্তি ডেক্স


স্ন্যাপচ্যাটের প্যারেন্ট কোম্পানি স্ন্যাপ ইনকরপোরেশনকে কিনতে চেয়েছিল গুগল। এজন্য স্ন্যাপের সহপ্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ইভান স্পাইজেলকে ৩ হাজার কোটি ডলারের বেশি মূল্য পরিশোধে আগ্রহী ছিল মার্কিন প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটি, যা স্ন্যাপের বর্তমান বাজারমূল্যের চেয়ে প্রায় দুই গুণ বেশি। সংশ্লিষ্ট তিন সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে এক প্রতিবেদনে এমনটাই জানিয়েছে বিজনেস ইনসাইডার।

সংশ্লিষ্ট সূত্রমতে, বিষয়টি ঘিরে তারা বিস্তারিত আলোচনা শুনেছেন এবং প্রস্তাবিত মূল্য সম্পর্কে জেনেছেন। স্ন্যাপের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তা এবং প্রযুক্তি শিল্পের নির্দিষ্ট কয়েকজন বিষয়টি জানেন। ২০১৬ সালের শুরুর দিকে প্রথম স্ন্যাপ অধিগ্রহণের আগ্রহ প্রকাশ করেছিল গুগল। বিষয়টি গত কয়েক দিন ধরে আবারো আলোচনায় উঠে এসেছে।

বিজনেস ইনসাইডারের তথ্যমতে, এ বিষয়ে কতটা আনুষ্ঠানিক আলোচনা হয়েছে তা তারা নিশ্চিত নয়। কিন্তু গুগল ও স্ন্যাপের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরেই ভালো সম্পর্ক বিদ্যমান। বিশেষ টেক সম্মেলনগুলোতে এ দুই প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের মধ্যে প্রায়শই অনানুষ্ঠানিক আলোচনায় অংশ নিতে দেখা যায়। চলতি বছরের মার্চে যখন স্ন্যাপ শেয়ারবাজারে প্রবেশ করে তখনো দুই প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের মধ্যে আন্তরিক সম্পর্ক দেখা গেছে।

স্ন্যাপচ্যাট ইনস্ট্যান্ট ফটো শেয়ারিংয়ের জন্য তরুণ প্রজন্মের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয়। গত মার্চে অ্যাপ্লিকেশনটির মূল প্রতিষ্ঠান স্ন্যাপ প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে শেয়ারবাজারে প্রবেশ করে। সে সময় এর বাজারমূল্য দাঁড়ায় ২ হাজার কোটি ডলার। এর আগ মুহূর্তে স্ন্যাপ অধিগ্রহণে প্রাথমিক প্রস্তাব দিয়েছিল গুগল। এর প্যারেন্ট কোম্পানি অ্যালফাবেট নিয়ন্ত্রিত গ্রোথ ইকুইটি ফান্ড ‘ক্যাপিটালজি’ স্ন্যাপের প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের মাধ্যমে অভিহিত মূল্যে শেয়ার বিক্রির মাধ্যমে তহবিল সংগ্রহের কার্যক্রমে অংশ নিয়েছিল।

সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানায়, গত মার্চেই সম্ভাব্য অধিগ্রহণ বিষয়ে গুগল ও স্ন্যাপের মধ্যে প্রাথমিক আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছিল। আইপিও ছাড়ার সময় প্রতিষ্ঠানটিকে ৩ হাজার কোটি ডলারে অধিগ্রহণ প্রস্তাব দিয়েছিল গুগল। অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে, বড় সুযোগ হাতছাড়া করেছে স্ন্যাপ। কারণ নতুন ব্যবহারকারী টানতে ব্যর্থ হওয়ায় এর শেয়ারদর হ্রাস পেয়েছে। এ কারণে বিনিয়োগকারীদের চাপে রয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। বর্তমানে স্ন্যাপের প্রতি শেয়ারের মূল্য দাঁড়িয়েছে ১২ দশমিক ৫০ ডলার। এতে করে এর বাজারমূল্য দাঁড়ায় ১ হাজার ৪০০ কোটি ডলার। অথচ আইপিও ছাড়ার সময় এর বাজারমূল্য ২ হাজার ৪০০ কোটি ডলারে পৌঁছেছিল।

বিজনেস ইনসাইডারের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে স্ন্যাপের এক মুখপাত্র বলেন, গুজবনির্ভর এসব আলোচনা মিথ্যা। গুগল স্ন্যাপকে কিনছে এ নিয়ে আনুষ্ঠানিক আলোচনার বিষয়টি ভিত্তিহীন। অন্যদিকে গুগলের পক্ষ থেকেও এ বিষয়ে মন্তব্য করতে অপারগতা প্রকাশ করা হয়।

স্ন্যাপ ইনকরপোরেশন এবং গুগলের মধ্যে সম্ভাব্য অধিগ্রহণ চুক্তি প্রযুক্তি খাত-সংশ্লিষ্টদের দৃষ্টি কাড়ার কারণ এ দুই প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সুসম্পর্ক।

সংশ্লিষ্ট সূত্রমতে, উভয় প্রতিষ্ঠানের নেতৃস্থানীয় কর্মকর্তাদের মধ্যে পারস্পরিক সম্মান ও শ্রদ্ধার বিষয়টি স্পষ্ট। গুগলের মূল প্রতিষ্ঠান অ্যালফাবেটের নির্বাহী চেয়ারম্যান এরিক স্মিট স্ন্যাপ সিইও ইভান স্পাইজেলের শুরুর দিকের একজন পরামর্শক। গুগল ক্লাউডের অন্যতম গ্রাহক স্ন্যাপ। পাশাপাশি স্ন্যাপচ্যাটের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য অভ্যন্তরীণভাবে গুগলের বিভিন্ন অ্যাপ ব্যবহার করছে স্ন্যাপ।

সার্চ ইঞ্জিনের পাশাপাশি সব সময় একটি জনপ্রিয় সামাজিক নেটওয়ার্কের নিয়ন্ত্রক হতে চেয়েছে গুগল। বিভিন্ন সময় গুগল প্লাস এবং গুগল বুজের মতো একাধিক সামাজিক যোগাযোগ সাইট প্রতিষ্ঠা করতে চেয়ে ব্যর্থ হয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

২০১৩ সালে স্ন্যাপচ্যাট কিনতে চেয়েছিল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মার্ক জাকারবার্গ। তবে সে সময় অধিগ্রহণ প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন ইভান স্পাইজেল। জাকারবার্গ স্ন্যাপচ্যাট কিনতে ব্যর্থ হলে ওই সময় ৪০০ কোটি ডলারে সেবাটি অধিগ্রহণ প্রস্তাব দিয়েছিল গুগল।

স্ন্যাপ সংশ্লিষ্টদের তথ্যমতে, ২৭ বছর বয়সী ইভান স্পাইজেল অত্যন্ত স্বাধীনচেতা এবং স্ন্যাপ বিক্রির বিষয়ে তার কোনো আগ্রহ নেই। বৈশ্বিকভাবে তিনি একজন স্বপ্নদর্শী সিইও হিসেবে বিবেচিত। সিলিকন ভ্যালির বাইরে থেকে অর্থাত্ দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়া থেকে যে কিনা স্ন্যাপকে আজকের পর্যায় নিয়ে এসেছে।

Print Friendly

     এই ক্যাটাগরীর আরো খবর