,

আইটিতে তরুণদের দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে

ঢাকা অফিস ♦

তরুণরা সমৃদ্ধ হলেই দেশ সমৃদ্ধ হবে। তরুণরা প্রশিক্ষণ নিয়ে আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টি করলে দেশ দ্রুত এগিয়ে যাবে। আইটি সেক্টরে সম্ভাবনা রয়েছে প্রচুর। সেই সম্ভাবনার ক্ষেত্রটি তৈরিতে প্রয়োজন নতুন স্বপ্ন নির্মাণের। গ্লোবাল ভিলেজ, গ্লোবালাইজেশন বা বিশ্বমানের যে তোড়জোড় সেটার অবদান একমাত্র তথ্যপ্রযুক্তির। আইসিটি বা তথ্যপ্রযুক্তিতে বর্তমানে রয়েছে চমত্কার ক্যারিয়ার। আর তার জন্যই প্রতিনিয়ত নেওয়া হচ্ছে প্রশিক্ষণসহ নানা উদ্যোগ। আইটি সেক্টরের আওতায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে দক্ষতা বিষয়ক প্রশিক্ষণও প্রদান করা হয়। এমনই চিন্তা থেকে গত ১৯ জুলাই বাংলাদেশ ব্যাংকের এসএমই অ্যান্ড স্পেশাল প্রোগ্রামস বিভাগের কনফারেন্স রুমে অনুষ্ঠিত হয় প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেশন ইউনিট কর্তৃক বাস্তাবায়নাধীন স্কিলস ফর এমপ্লয়মেন্ট ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রাম (SEIP)। এই প্রকল্পের আওতায় আইটি বিষয়ক দক্ষতা উন্নয়নের লক্ষ্যে প্রফেশনাল ফ্রিল্যান্সিং, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ওয়েব সাইট ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট কোর্সসমূহ তিন মাস ও ছয় মাস মেয়াদি ২০১৭-২০১৮ অর্থ বছরে ৯৫০ জন প্রশিক্ষনার্থী ফ্রি প্রশিক্ষণ, থাকা ও খাওয়া দেওয়া হবে। এই প্রোগ্রামটি পরিচালনার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষে এসএমই অ্যান্ড স্পেশাল প্রোগ্রামস বিভাগের মহা ব্যবস্থাপক শেখ মো. সেলিম এবং চিফ প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর ও উপ-মহাব্যবস্থাপক মোস্তাফিজুর রহমান এবং ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি (এনআইইটি) ঢাকার পক্ষে চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মো. আব্দুল আলীম, ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি (এনআইইটি) নারায়ণগঞ্জের পক্ষে চেয়ারম্যান প্রকৌশলী আব্দুল আজিজ চুক্তি স্বাক্ষর করেন। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষে উপ-পরিচালক মো. জাহিদ ইকবাল, উপ-পরিচালক মো. কামরুল হাসান, উপ-পরিচালক মো. শেখ আজম আলী ও উপ-পরিচালক খোকন কুমার পাল এবং এনআইইটির পক্ষে কন্সাল্টেন্ট মো. মেসবাউল হোসেন ও পিআরও মো. নাহিদ হাসান।

Print Friendly

     এই ক্যাটাগরীর আরো খবর