,

বেতাগীতে ডক্টরস ক্লিনিকে দুর্বৃত্তদের ভাংচুর, ডা. মাহাবুবসহ অাহত ৪

নিজস্ব প্রতিবেদক ♦

বরগুনার বেতাগীতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গলায় ফাঁস দেওয়া রোগীর চিকিৎসা করার জন্য ক্লিনিক থেকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে না যাওয়ায় মেডিকেল অফিসার ডা. মাহবুবুর রহমানের পিটিয়ে আহত করেছে দুর্বৃত্তরা। এসময়ে ডক্টর’স ক্লিনিক ব্যাপক ভাংচুর করা হয়েছে। এ হামলায় ক্লিনিকের ৩ স্টাফ আহত হয়েছে। ডা. মাহবুবকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
রবিবার (১৪ অক্টোবর) রাত ৮ টায় শহরের স্টেশন রোডস্থ বেসরকারি ক্লিনিক ডক্টর’র অ্যান্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে ২০ থেকে ২৫ জন যুবক অতর্কিত হামলা চালিয় ব্যাপক ভাংচুর করে। ক্লিনিকে কর্তব্যরত উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. মাহবুবুব রহমানকে এলোপাতারী পিটিয়ে মারাত্মকভাবে আহত করে এবং তার সাথে থাকা টাকা ও স্মার্ট ফোনসহ ক্লিনিকের মালামাল লুট করে। এ ঘটনায় ক্লিনিকের স্টাফ সানজিদা (২৫), আজিজূর রহমান (৩৫) এবং বাদল (২৮) আহত হয়েছে। অাহত ডাক্তার মাহবুবকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ হামলায় প্রায় ৫ লক্ষাধিক টাকার মালামাল ক্ষতি হয়েছে বলে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ দাবী করেন।
জানাযায়, বেতাগী সদর ইউনিয়নের জিলবুনিয়া গ্রামের মো: মোতালেব হোসেনের পুত্র ও ছাত্রদল নেতা মো: সুমন গলায় ফাঁস দেয়। এলাকার লোকজন তাকে সন্ধ্যা ৭টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। এ সময়ে কর্তব্য চিচিৎসক ডা. শাকিল তানভীর সব ধরনের পরীক্ষা করে জানান রোগী আরও আধাঘন্টা আগে মারা গেছে। এ সময়ে অাবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. শাহেদ মাহমুদ সাদি উপস্থিত ছিলেন। রোগীর সাখে থাকা লোকজন এ সিদ্ধান্ত মেনে নেয়নি। তারা ডা. মাহবুবকে খোজ করে। এর পর পরই এ ক্লিনিকে হামলা ও ভাংচুর করা হয়।
উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. মাহবুবুব রহমান বলেন, আজকে আমার ডিউটি না থাকায় হাসপাতালে ছিলাম না। ক্লিনিকে কয়েকজন গুরুতর গায়নী রোগী থাকায় আমি ক্লিনিকে ছিলাম। সে সময়ে দু’জন ডাক্তার হাসপতালে উপস্থিত ছিলেন। আমার উপর অহেতুক এবং আক্রোশমূলকভাবে এ হামলা করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, আমার উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে এ বিষয়ে আইনের আশ্রায় নিব। উটজেলা স্বাস্থ ও পরিবার পরিল্পনা কর্মকর্তা ডা. এনামুল হক জানান, এ ধরনের ঘটনা নিন্দনীয়।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: রাজীব অাহসান ও বেতাগী থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) মো: হুমায়ূন কবির ঘটনা স্থান পরিদর্শন করেন।

Print Friendly

     এই ক্যাটাগরীর আরো খবর