,

‘তথ্য আপা প্রকল্প ও বাংলাদেশ ফরেন ট্রেড ইন্সটিটিউট এর মধ্যে “ই-কমার্স” বিষয়ে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত

নিজস্ব প্রতিবেদক♦
মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ‘তথ্য আপা’ প্রকল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বাংলাদেশ ফরেন ট্রেড ইনস্টিটিউটের (বিএসটিআই) মধ্যে ই-কমার্স বিষয়ে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে। এর মাধ্যমে একটি ই-কমার্স মার্কেটপ্লেস তৈরি করা হবে। যেখানে গ্রামীন নারী উদ্যোক্তারা এই প্ল্যাটফর্মে তাদের উৎপাদিত ও সংগৃহীত পণ্য বিক্রয় করতে পারবেন।

বুধবার (৩ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে সচিবালয়ে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এই সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠিত হয়। ‘তথ্য আপা’ প্রকল্পের পরিচালক ও অতিরিক্ত সচিব মীনা পারভীন এবং বাংলাদেশ ফরেন ট্রেড ইনস্টিটিউটের পক্ষে ইনস্টিটিউটের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আলী আহমেদ সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেন। মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কাজী রওশন আক্তার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্য সচিব ড. মোঃ জাফর উদ্দীন।

অনুষ্ঠানে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব কাজী রওশন আক্তার বলেন, মহিলা বিষয়ক মন্ত্রণালয় নারীর ক্ষমতায়নের জন্য বিভিন্ন প্রকার কর্মসূচী ও প্রকল্প বাস্তবায়ন করে চলেছে। এ সমঝোতা স্মারকের মাধ্যমে নতুন সে ধরনের আরও একটি দ্বার উন্মোচিত হচ্ছে। আমরা একেবারে প্রত্যন্ত অঞ্চলে তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে নারীদেরকে ক্ষমতায়ন করার জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছি। করোনাকালীন সময়ে ই-কমার্সের যে ব্যাপ্তি, একটা সময় মানুষের জীবন থেমে গিয়েছিল। কিন্তু ই-কমার্সের মাধ্যমে অনেক বড়-বড় সমস্যার সমাধান হয়েছে।

গ্রামীণ মহিলাদেরকে আত্মকর্মসংস্থানের মাধ্যমে স্বাবলম্বী করে তোলা হচ্ছে জানিয়ে সিনিয়র সচিব বলেন, নারীর ক্ষমতায়নের জন্যে একটি অন্যতম শর্ত হলো অর্থনৈতিক মুক্তি। নারীরা যদি এভাবে স্বাবলম্বী হয়, একটা সময় আর সংকট থাকবে না, এ বিষয়ে আমরা আশাবাদী।

অনুষ্ঠানে বাণিজ্য সচিব ড. মোঃ জাফর উদ্দীন বলেন, এই প্রকল্পের নামের মধ্যেই মায়া আছে। এই প্রকল্পের শুরুতে যারা ছিলেন তাদেরকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আজকের সমঝোতা স্মারকের মাধ্যমে দেশের অর্ধেক জনগোষ্টী নারীর অর্থনৈতিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।অনুষ্ঠানে জানানো হয়, গ্রামীণ উদ্যোক্তা ও ভোক্তাদের ই-কমার্সে অন্তর্ভূক্ত করার জন্য একটি ই-কমার্স মার্কেটপ্লেস, অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন,আইওএস অ্যাপ্লিকেশন ও অন্যান্য সফটওয়্যার তৈরি করা হবে। এ ক্ষেত্রে সার্বিক সহযোগিতা করবে বাংলাদেশ ফরেন ট্রেড ইনস্টিটিউট। অনুষ্ঠানে আরও জানানো হয়, সারাদেশব্যাপী ‘তথ্য আপা’ প্রকল্পের নেটওয়ার্ককে কাজে লাগিয়ে ই-কমার্সকে প্রত্যন্ত অঞ্চলে তৃণমূল নারীদের দোরগোড়ায় পৌঁছানোর লক্ষ্যে ‘তথ্য আপা’রা উপজেলায় উদ্যোক্তা নির্বাচন, তাদের মোটিভেশন প্রদান ও তাদের পণ্য ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মে উপস্থাপন কাজে সহায়তা করবেন। এ লক্ষ্যে ইতোমধ্যে সারাদেশের ৪৯০ টি উপজেলায় কর্মরত ‘তথ্য আপাদে’র ই-কমার্স প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করা হয়েছে। গ্রামীন নারী উদ্যোক্তারা এই প্ল্যাটফর্মে তাদের উৎপাদিত ও সংগৃহীত পণ্য বিক্রয় করে আর্থিকভাবে লাভবান হবেন। তাদের জীবন যাত্রার মান উন্নয়ন হবে। তাদের আর্থিক ক্ষমতায়ন নিশ্চিত হবে বলেও অনুষ্ঠানে জানানো হয়।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান বেগম চেমন আরা তৈয়ব। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ফরিদা পারভীন, অতিরিক্ত সচিব ড. মহিউদ্দীন আহমেদ, জাতীয় মহিলা সংস্থার নির্বাহী পরিচালক মাকসুরা নূর এনডিসি, যুগ্মসচিব জনাব এ কে এম শামীম আক্তার এবং যুগ্মসচিব অধিশাখা জনাব নার্গিস খানম, বাংলাদেশ ফরেন ইনস্টিটিউট এর পরিচালক ওবায়দুল আজম, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব মোঃ আব্দুর রহিম খান।

Print Friendly

     এই ক্যাটাগরীর আরো খবর