,

চুড়ান্ত অনুমোদন পেল বিষখালী নদীতে বেতাগী-কচুয়া ফেরি II এলাকায় মিষ্টি বিতরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক ♦
বরগুনার বেতাগীতে পটুয়াখালী-মির্জাগঞ্জ-বেতাগী-কচুয়া মহাসড়কের বিষখালী নদীতে বেতাগী-কচুয়া পয়েন্টে ফেরি স্থাপনের চুড়ান্ত প্রশাসনিক অনুমোদন দিয়েছে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়।
মঙ্গলবার (২ নভেম্বর) সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের উপ-সচিব ফাহমিদা হক খান স্বাক্ষরিত চিঠির মাধ্যমে বিষখালী নদীতে বেতাগী-কচুয়া পয়েন্টে ফেরি স্থাপনের চুড়ান্ত প্রশাসনিক অনুমোদন দেয়া হয়। ফলে বেতাগীবাসীর দীর্ঘদিনের প্রাণের দাবী পূরণ হল। এ ফেরি চালু হলে পায়রা বন্দর ও মংলা বন্দরের সাথে সরাসরি সড়ক যোগাযোগ স্থাপিত হবে। বিষখালী নদীতে ফেরি স্থাপনের জন্য দু’পাড়ের মানুষের দীর্ঘদিনের দাবী ছিল এটি।
ফেরি স্থাপনের চুড়ান্ত অনুমোদনের খররে নদীর দু’পাড়ের লোকজনের মাঝে আনন্দের জোয়ার বইছে। বিতরণ করা হয়েছে মিষ্টি। বেতাগী প্রেসক্লাবের উদ্যোগে সন্ধ্যায় শোকরানা সভার আয়োজন করে। প্রেসক্লাবের সভাপতি সাইদুল ইসলাম মন্টু সভাপতিত্বে এ সভায় বক্তৃতা করেন সিনিয়র সদস্য আব্দুস সালাম সিদ্দিকী, সাধারণ সম্পাদক লায়ন মো: শামীম সিকদার, সিরিয়র সদস্য আবুল বাসার খান প্রমুখ। দোয়ানুষ্ঠান পরিচালনা করেন মাওলানা জোয়ায়ের। বক্তরা ফেরি স্থাপনে অবদান রাখার জন্য বরগুনা-২ আসনের সংসদ সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমন, জনাব শওকত হাচানুর রহমান রিমন, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব খান মো: রেজাউল করিম, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব শ্যামল চন্দ্র কর্মকার, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের যুগ্ন সচিব মো: খাইরুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বেতাগী পৌরসভার মেয়র এবিএম গোলাম কবির ও কাঠালিয়ার শৌলজালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহমুদ হোসেন রিপন’র প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন এবং ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। সভা শেষে মিষ্টি বিতরণ করা হয়।

Print Friendly

     এই ক্যাটাগরীর আরো খবর